মঙ্গলবার, ১১ Jun ২০২৪, ০৩:৩০ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
আজীবন সম্মাননা পেলেন জনাব ওসমান গণি ও শফিকুর রহমান মধু মিয়া বৃষ্টির ধারায় মুছে যাক “রোজা রাখি, আল্লাহর হুকুম পালন করি, নিজে সুস্থ থাকি অপরকে সুস্থ থাকতে উৎসাহিত করি” মঙ্গলকাটা কম্পিউটার ট্রেনিং সেন্টার ‘MCTC’র এক যুগ পূর্তিতে আনন্দ ভ্রমণ ফেনিবিল ও কোনাপাড়া সমাজকল্যাণ যুব সংঘের অমর একুশে উদযাপন ‘আব্দুল গণি ফাউন্ডেশন’ মেধাবৃত্তি পরিক্ষা-২২ এর বৃত্তি প্রাপ্তদের পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত নারায়ণতলা মিশন উচ্চ বিদ্যালয়ে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগীতা অনুষ্ঠিত সুনামগঞ্জের ডলুরা বর্ডারহাটে অনিয়ম ও মাদক বন্ধের দাবীতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত তৃতীয় বারের মত অনুষ্ঠিত হয়ে গেলো দাখিল ২০০৪ ব্যাচ এর মিলনমেলা কোনাপাড়া সমাজকল্যাণ যুব সংঘের শীত বস্ত্র বিতরণ

ভারতীয় সেনাদের গুলিতে নিহত দুই তরুণ স্বাধীনতাকামীর দাফন: জানাযায় শোকার্ত মানুষের ঢল

ভারতীয় সেনাদের গুলিতে নিহত দুই তরুণ স্বাধীনতাকামীর দাফন: জানাযায় শোকার্ত মানুষের ঢল

জম্মু ও কাশ্মীরে নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে সপ্তাহান্তে নিহত দুই কাশ্মীরি তরুণের দাফন অনুষ্ঠানে সোমবার হাজার হাজার শোকার্ত মানুষের ঢল নামে। গ্রামবাসী দুই তরুণের লাশ নিয়ে যান উত্তরাঞ্চলীয় হাজিন শহরের ‘শহীদী গোরস্তানে’ দাফনের জন্য।

এসময় তারা ভারত-বিরোধী জঙ্গিদের নকল করে ¯েøাগান দেয় এবং হিমালয়ান অঞ্চলটির উপর ভারতীয় শাসনের অবসান দাবি জানায়। দুই তরুণের জানাযায় হাজার হাজার মানুষ অংশ নেয়। রাজ্যের বিভিন্ন অংশ থেকে আসা লোকজনকে জানাযায় অংশ গ্রহণের সুযোগ করে দিতে তিনবার জানাযা অনুষ্ঠিত হয়। পুলিশ জানায়, দুই বন্ধু ১৪ বছর বয়সী মুদাচ্ছির রাশিদ পাররে ও ১৭ বছর বয়সী সাকিব বিলাল শেখ গত আগস্টের শেষ দিকে বিদ্রোহী দলে যোগ দেয়।

পুলিশের মতে, তিন দশক ধরে চলা কাশ্মীরের স্বাধীনতা আন্দোলনে বিদ্রোহী দলে যোগ দেয়া সবচেয়ে কম বয়সী বালক ছিলো পাররে। কাশ্মীর নিয়ে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে বিরোধ চলে আসছে। দুই দেশ এই ভূখÐের আংশিক দখল করে থাকলেও প্রত্যেকে পুরোটাই দাবি করছে। স্থানীয় অধিবাসী আজহার আহমেদ বলেন, জীবনে-মরণে দুজনে বন্ধু হয়ে রইলো। আমরা দুই উচ্ছল শিশুকে হারালাম। সবার চোখ ভেজা। তারা একই কারণে বেঁচে ছিলো, মারাও গেছে একই কারণে।

রোববার প্রায় ১৮ ঘন্টা ধরে চলা বন্দুক যুদ্ধে এক জঙ্গি কমান্ডারসহ এই দুই তরুণ নিহত হয়। এর জের ধরে সারা রাজ্যে আবরো প্রবল ভারত বিরোধী বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে। এসময় নিরাপত্তাবাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে আরো পাঁচজন আহত হয়। বন্দুক যুদ্ধে নিরাপত্তা বাহিনীর অন্তত তিন জন অফিসার ও জওয়ান আহত হয়।

সোমবার জানাযা ও দাফনের পরপরই হাজার হাজার মানুষ হাজিনের রাস্তায় নেমে আসে। তারা ‘ভারত ফিরে যাও’, ‘আমরা স্বাধীনতা চাই’, ইত্যাদি ¯েøাগান দেয়। এসময় সরকারি বাহিনীর সঙ্গেও তাদের সংঘর্ষ হয়। বিক্ষোভকারীদের দমন করতে পুলিশ ও আধা সামরিক বাহিনী শটগানের গুলি ও টিয়ারগ্যাস ছোঁড়ে।

বেশিরভাগ কাশ্মীরি বিদ্রোহীদের দাবিগুলো সমর্থন করেন। এই ভূখÐটিকে তারা পাকিস্তানের সঙ্গে যুক্ত অথবা গোটা কাশ্মীরকে স্বাধীন রাষ্ট্র করার দাবি জানান। সা¤প্রতিক বছরগুলোতে অনেক তরুণ কাশ্মীরিকে বিদ্রোহীদের প্রতি প্রকাশ্যে সংহতি জানাতে দেখা যায়। বিদ্রোহীদের পাকরাও করতে সেনাবাহিনী যখন অভিযান চালায় তখন কাশ্মীরি তরুণরা রাস্তায় বিক্ষোভ করে সেনাদের বাধা ও বিদ্রোহীদের পালিয়ে যাওয়ার সুযোগ করে দেয়ার চেষ্টা করে। সাউথ এশিয়ান মনিটর। inqilab


আপনার এ্যাড দিন

ফটো গ্যালালি

Islamic Vedio

বিজ্ঞাপন ভিডিও এ্যাড




© All rights reserved © 2018 angina24.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com