শনিবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২৩, ০৯:২৫ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
নারায়ণতলা মিশন উচ্চ বিদ্যালয়ে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগীতা অনুষ্ঠিত সুনামগঞ্জের ডলুরা বর্ডারহাটে অনিয়ম ও মাদক বন্ধের দাবীতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত তৃতীয় বারের মত অনুষ্ঠিত হয়ে গেলো দাখিল ২০০৪ ব্যাচ এর মিলনমেলা কোনাপাড়া সমাজকল্যাণ যুব সংঘের শীত বস্ত্র বিতরণ মাসিক ‘উত্তর সুরমা’র উদ্যোগে জিপিএ-৫ প্রাপ্ত কৃতি শিক্ষার্থী সংবর্ধনা প্রদান ‘আব্দুল গণি ফাউন্ডেশন’ এর অধীনে মেধাবৃত্তি- ২০২২ এর ফল প্রকাশ রাঙ্গাবালী ট্যুরিজমের আয়োজনে গ্রান্ড মিট আপ-২০২২ সম্পন্ন শায়েখ কাজী আমীন আত তাফহিমের ‘বিবাহের আগে ও পরে’ বইয়ের মোড়ক উন্মোচন আলহাজ্ব গণি মাস্টার ওয়েল ফেয়ার ট্রাস্টের মেধাবৃত্তি প্রদান মাসিক উত্তর সুরমা পত্রিকা প্রকাশ

আধুনিকতা মানুষকে গোমরাহির দিকে ধাবিত করছে। ফ্যাক্ট ‘ফেসবুকে জন্মদিন’ পালন…

আধুনিকতা মানুষকে গোমরাহির দিকে ধাবিত করছে। ফ্যাক্ট ‘ফেসবুকে জন্মদিন’ পালন…

মো. আব্দুল্লাহ আল কাইয়ুম ::

এ আবার কেমন কথা, তাই না!

ফেসবুক ২০০৪ সালে প্রতিষ্ঠা হয়ে আজ পর্যন্ত তার ভক্ত (ব্যবহারকারীর সংখ্যা) মিলিয়ন থেকে বিলিয়ন ছাড়িয়েছে। আমাদের প্রিয় মাতৃভূমি বাংলাদেশ দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মাঝে অন্যতম একটি দেশ, যেখানে ফেসবুক খুবই জনপ্রিয়। এই ফেসবুক দূরের মানুষকে কাছে এনে দিয়েছে, সার কথায় বলতে গেলে সারা পৃথিবীকে পরিণত করেছে গ্লোবাল ভিলেজ রূপে। কবি নজরুল ইসলামের বাণী “থাকব নাক বদ্ধ ঘরে…..আপন হাতের মুঠের পরে” আজ সত্যতে পরিনত হয়েছে।

আমরা কী কখনো ভেবেছি ফেসবুকের কাছে আমরা একরকম বন্দী। প্রশ্ন তা আবার কিভাবে? একটু ছোট্ট করে মাথা খাটালেই বুঝা যাবে, সত্যিই আমরা বন্দী, কারণ ইচ্ছায় হোক আর অনিচ্ছায় হোক আমাদের তথ্যগুলো ফেসবুক কর্তৃপক্ষ বিশেষ করে মার্ক জুকার বার্গদের হাতে তুলে দিয়ে আমরা বন্দী। কিভাবে তারা মাথা খাটিয়ে পৃথিবীর কোটি, কোটি মানুষকে নিয়ন্ত্রণ করছে এবং হাজার হাজার কোটি টাকার বিজনেস করে যাচ্ছে।

ওটা আমার আজকের বিষয় না! আজকের বিষয় হলো ফেসবুকে জন্মদিন পালন। মানুষ পৃথিবীর সেরা জীব এবং এই মানুষকেই দেয়া হয়েছে কাজের ক্ষেত্রে স্বাধীনতা। ফেসবুকে আইডি খোলার সময় ফেসবুক আমাদের একটি জন্ম তারিখ চায়। আমরা ওই ঘরে কেউ সঠিক জন্ম তারিখ দেই, আবার কেউ ইচ্ছামত একটি জন্ম তারিখ বসিয়ে রাখি। ফেসবুক কি করে ওই জন্ম তারিখের দিন, সে জানিয়ে দেয় আজ অমুক বন্ধুর জন্মদিন। হোক সে সম্পর্কে পিতা, মাতা, শ্বশুর, শ্বাশুড়ি, যা’ই হোক না কেন! তার ভাষায় বন্ধু।

এ কেমন কথা? তা’ই না! দেখেন তাদের মাথা কত সূক্ষ্ম, তারা এমন একটি শব্দ চয়ন করেছে যা মোটামুটি সবার ক্ষেত্রে ব্যবহার করা যায়। ফেসবুক যখন জানালো জন্মদিনের খবর, তখন আমরা ব্যস্ত হয়ে পরি জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানাতে। কেউ লিখি শুভ জন্মদিন, সুন্দর হোক আগামীর পথচলা, কেউবা ফুলের স্টিকার পাঠায় এরকম নানান ধরণের।

জন্মদিনের কেক কাটা, ফেসবুকে অভিনন্দন জানানো এ ট্রেডিশন কোথা থেকে আসল তা আমার জানা নেই, আবার এসব করে আমাদের লাভটাই বা কী? তা কী আমরা একবারও ভেবেছি!আমরা এসব করতে গিয়ে টাকা খরচ করছি, আর তারা (ফেসবুক) সূক্ষ মাথা খাটিয়ে আমাদের পকেট ফাকা করছে। কি এক গোলক ধাধায় আবর্তিত হচ্ছে আমাদের পৃথিবী।

আমাদের প্রতিটি জন্মদিন আমাদেরকে কবরের দিকে ধাবিত করছে, সে কথাটিই কিন্তু আমরা ভুলে যাচ্ছি। বাংলাদেশের মানুষের গড় আয়ু ৭২ বছর প্লাস। প্রতিটি জন্মদিন মানে হলো আয়ু (বয়স) কমে যাচ্ছে, তা’হলে আমরা জন্মদিনকে কেন্দ্র যা করছি তা কি সঠিক করছি? এ প্রশ্ন রেখেই লেখা অসমাপ্ত রেখে সমাপ্তি টানলাম!!!

( বি.দ্র. এটা আমার নিজস্ব চিন্তা মাত্র, মানুষের লেখা কোন বিষয়ই ১০০% সঠিক হয় না, আমার ক্ষেত্রেও তার ব্যতিক্রম নয়)।

লেখক : মো. আব্দুল্লাহ আল কাইয়ুম: কলামিস্ট, শিক্ষাগুরু, প্রাবন্ধিক, আইনজীবী, রাজনৈতিক বিশ্লেষক, সমাজকর্মী ও বহু গ্রন্থ প্রণেতা।


আপনার এ্যাড দিন

ফটো গ্যালালি

Islamic Vedio

বিজ্ঞাপন ভিডিও এ্যাড




© All rights reserved © 2018 angina24.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com